Avionix Engineering

Avionix Engineering

Head of The Department: Will be provided soon
Category: diploma Program

Course Description

বিশ্বায়নের এই যুগে পরিবর্তনের একটি অপরিহার্য মাধ্যম হলো উড়োজাহাজ। বাংলাদেশসহ সারা বিশ্ব এখন এই লাভজনক পরিবহন ব্যাবসায় অধিক বিনিয়োগ করছে । ফলে দেশে এখন বিমান সংস্থার সংখ্যা কমপক্ষে ২৪টি, ২০২০ সালে যা হবে দ্বিগুণেরও বেশি। ক্রমবর্ধমান চাহিদার সাথে উড়োজাহাজ প্রকৌশলী চাহিদাও বাড়ছে। আর এই প্রকৌশলী তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে ইনস্টিটিউট অব সাইন্স ট্রেড এন্ড টেকনোলজিসহ হাতে গোনা দু-একটি প্রতিষ্ঠান।। সঠিক পদ্ধতিতে শিক্ষাদানের মাধ্যমে একজন শিক্ষার্থীর দক্ষতা বৃদ্ধি করে তাকে স্বাবলম্বী করে গড়তেই কাজ করে যাচ্ছে এই প্রতিষ্ঠানটি। গতানুগতিক, ব্যয়বহুল শিক্ষাব্যাবস্থার বাইরে এই বিষয়ে দ্রুত ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে, যা আমাদের দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য অনেক বেশি উপযোগী।

এয়ারক্র্যাফট মেইনটেনেন্স ইঞ্জিনিয়ার(এএমই) হচ্ছেন লাইসেন্সপ্রাপ্ত এমন একজন ব্যক্তি যিনি উড়োজাহাজের জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মান নিশ্চিত করেন। উড়োজাহাজ ফ্লাই করার পূর্বে উড়োজাহাজের সিস্টেমগুলো ঠিক আছে কি না, তার সার্টিফিকেট নিতে হয় একজন এয়ারক্র্যাফট মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ারের (এএমই) কাছেই। কেমন হবেন এএমই :উড়োজাহাজে অবস্থিত সকল যাত্রী এবং পাইলটদের নিরাপত্তা নির্ভর করে একজন এএমইর উপর। এএমই যদি ভুল করে, উড়োজাহাজ কখনও তার গন্তব্যে নিরাপদে পৌঁছাতে পারবে না। তাই একজন এএমইকে হতে হবে দক্ষ এবং বিচক্ষণ। এই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার মানসিকতা থাকতে হবে।

এএমই (এভিয়নিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং)-এর কাজ :উড়োজাহাজের ফ্লাইট ডাইমানিক্স, কোয়ালিটি, স্ট্যাবিলিটি পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ সিস্টেম নিয়ে এভিয়নিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং। উড়োজাহাজের ইলেকট্রনিক্স সিস্টেম নিয়ে কাজ করা হয় এভিয়নিক্সে। এভিয়নিক্সের মধ্যে রয়েছে এক্সিলারোমিটার, গাইরোস্কোপ, ফাইট ইন্সট্রুমেন্টস, সেন্সর একুরেটর, লিনিয়ার সার্কিট, কম্পিউটার এইডেড ডিজাইন (ক্যাড), অ্যানালগ অ্যান্ড ডিজিটাল এভিয়নিক্স কম্পোনেন্ট প্রভৃতি।